লাইফ সাপোর্টে ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া।

এম এইচ মনিরঃ

কুমিল্লার কৃতি সন্তান সাবেক মন্ত্রী বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া রাজধানী ঢাকার একটি হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন। উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিক বেড়ে শ্বাসকষ্ট দেখা দেওয়ায় গত ৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁহার অবস্থা বর্তমানে স্থিতিশীল রয়েছে। শারীরিক সুস্থতার জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন তার সহধর্মিণী অধ্যাপক ড. শাহিদা রফিক।

জানা যায়, উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিক বেড়ে যাওয়ায় রবিবার সন্ধ্যায় ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়াকে ইবনে সিনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় রবিবার রাত ১০টার দিকে তাকে রাজধানীর ইবনে সিনা হাসপাতালের নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে লাইফ সাপোর্ট দেওয়া হয়। তার ফুসফুসে পানি জমেছে। বর্তমানে তিনি  নিউরোলোজিস্ট অধ্যাপক ডা. আবদুল হাইয়ের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ তথ্য জানিয়েছেন রফিকুল ইসলাম মিয়ার ব্যক্তিগত সহকারী ও জাতীয়তাবাদী সেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রিয় নেতা  মোকছেদুর রহমান আবীর। আজ বুধবার রাতে আবির জানান, স্যারের অবস্থা স্থিতিশীল।

উল্লেখ্য,ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া ১৯৪৩ সালে কুমিল্লার জেলার মুরাদনগর উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া ১৯৯১ সালের পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের মনোনয়নে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এর পর তিনি ফেব্রুয়ারি ১৯৯৬ সালের ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি ১৯৯১-১৯৯৬ সালে প্রথম খালেদা জিয়ার মন্ত্রিসভায় গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এসময় মুরাদনগর সহ কুমিল্লার উন্নয়নে ভূমিকা রাখেন। ২০০৭ সালের সেপ্টেম্বরে বেগম খালেদা জিয়া দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে গ্রেফতার হলে ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া আইনজীবী হিসেবে তার পক্ষে লড়েন। ক্লীন ইমেজের নেতা হিসেবে দলে ও দেশবাসীর কাছে তার সুখ্যাতি রয়েছে।

আরো পড়ুন
error: Content is protected !!