নগরীর প্রবেশদ্বার শাসনগাছা- বুড়িচং সড়কের ‘আড়াইওরা’ যেন বিষপোড়া!

এম.এইচ মনিরঃ

কুমিল্লা মহানগরীর প্রবেশদ্বার আলেখাচর-শাসনগাছা সড়কের ‘দূর্গাপুর’ মেডিসিন কমপ্লেক্স সংলগ্ন এশিয়া মার্কেটের সামনে কিছু অংশ ও শাসনগাছা-বুড়িচং সড়কের ‘আড়াইওরা’এলাকায় কিছু অংশ রাস্তা নষ্ট হয়ে খানা-খন্দের সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া ফ্লাইওভারের পশ্চিম প্রান্তে টার্মিনালে প্রবেশদ্বারে কিছু অংশের কার্পেটিং উঠে নষ্ট হয়ে গেছে। টানা বৃষ্টিতে পানি জমে সড়ক দুটির এসব স্থানে ডোবায় পরিনত হয়েছে। দূর্ঘটনার ঝুঁকি নিয়েই  হাজার-হাজার মানুষ যাতায়াত করছে জেলার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কগুলি দিয়ে। ঘটছে সিএনজি-অটোরিক্সা ও বিভিন্ন যানবাহন উল্টে দূর্ঘটনার ঘটনা। যানবাহন চালক ও যাত্রী সাধারনের কাছে এ দুটি স্থান বিষপোড়ায় পরিনত হয়েছে। বারবার তাগাদ দেওয়া সত্বেও কিছুতেই টনক নড়ছেনা কতর্ৃপক্ষের। 

 সওজ কুমিল্লার নির্বাহী প্রকৌশলী ড.আহাদ উল্লাহ জানান, বৃষ্টির পানি জমার কারণে সড়ক দুটি কিছু অংশ নষ্ট হয়েছে। সড়কের খানা-খন্দ সৃষ্টি হওয়া অংশ দ্রুত সংস্কার করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে এ নির্দেশ কখন বাস্তবায়ন হবে তা  নিয়ে শংকা প্রকাশ করে  শাসনগাছা এলাকার বাসিন্দা আদর্শ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আহাম্মেদ নিয়াজ পাবেল বলেন, শহরে প্রবেশের এ প্রধান দুটি সড়কের মাত্র কয়েক মিটার রাস্তা নষ্ট হওয়ার কারণে যাত্রী-চালকরা ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। এতে আমাদের সরকারের ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে আমি নিজে ও ইউপি চেয়ারম্যানসহ বারবার যোগাযোগ করেও  কোন ফল আসছে না। আমার কাছে মনে হচ্ছে সওজের কতিপয় অসাধু  কর্মকর্তা সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে ষড়যন্ত্র করছে।

জানা যায়,রাজধানী ঢাকাসহ জেলার পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের জেলা সদর এবং কুমিল্লা মহানগরীর প্রবেশ পথ আলেখাচর থেকে শাসনগাছা সড়ক।এ সড়কের আলেখাচর কোকাকোলা কোম্পানীর পিছনে দূর্গাপুর মেডিসিন কমপ্লেক্সের একটু দক্ষিনে এশিয়া মার্কেটের সামনে কয়েক মিটার রাস্তা ধেবে গেছে বেশ কয়েকমাস আগে। এ স্থানে বৃষ্টির পানি জমে কয়েকটি বড় বড় খানা-খন্দের সৃষ্টি হয়েছে। একটু বৃষ্টি হলেই পানি জমে যায়। গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে গর্ভের গভীরতা বেড়ে গেছে। এতে গর্তে আটকে যাচ্ছে যাত্রীবাহী পরিবহন। বিশেষ করে অটো-সিএনজি মতো হালকা যানবাহনগুলি উল্টে ঘটছে দূর্ঘটনা। সিএসজি চালক আলমগীর হোসেন বলেন, এ জায়গায় এসে আল্লাহ খোদার নাম নিয়ে ভয়ে ভয়ে পার হতে হয়। এটা যেন ফুলসেরাতের পুল। নেতারা বলে ‘আজ কাজ করবে,কাল কাজ ধরবে’। আল্লাহ জানে কবে যে আমাদের ভোগান্তি দূর হবে।

অপরদিকে ,বুড়িচং–শাসনগাছা সড়ক দিয়ে বুড়িচং -ব্রাহ্মণপাড়া সহ বিভিন্ন এলাকার লোকজনের ব্যাপক চলাচল রয়েছে। এসড়কটি ওই এলাকার মানুষ শহরে যোগাযোগের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ। শাসনগাছা ঈদগা এলাকারা বাসিন্দা সামছুল আলম জানান, কবে সড়কটি পূণার্ঙ্গ  সংস্কার হয়েছে আমরা কেউ জানি না। মাঝে মাঝে রাতের আঁধারে ইটের খোয়া ফেলে দায়সারা গোছের সংস্কার হয়। এরপর আবার সেই ভোগান্তি। বৃষ্টি হলে বিষপোড়ায় রুপ নেয়।

 

 শাসনগাছা মিরপুর সড়কের সিএনজি চালক জাহিদ জানান, সড়কটির ভাঙ্গা অংশের জন্য খুব ভোগান্তিতে আছি। গর্তে পড়ে এ পর্যন্ত চারবার আমার সিএনজি চালিত অটোরিক্সাটি বিকল হয়। অটোরিক্সা চালক সোহেল জানান, তার অটোরিক্সার ব্যাটারিতে গর্তের পানি ডুকে যায়। পরে ব্যাটারি ঠিক করাতে সাত’শ টাকা খরচ হয়। শুধু ভাঙ্গা অংশটির জন্য যাত্রী-চালক ও পথচারীদের এত ভোগান্তি। 

কুমিল্লা সড়ক ও জনপদ বিভাগ গণমাধ্যমকে বহু বলেছে সড়কটি সংস্কার করবে। তবে গত দু’ বছরে সড়কটি সংস্কার হয় নি। বিষয়টি নিয়ে কুমিল্লা সড়ক ও জনপদের নিবার্হী প্রকৌশলী মোহাম্মদ আহাদ উল্লাহ জানান, সড়কটির এ অংশসহ অন্য আরো কয়েকটি সড়কের জন্য ঢালাই করে সংস্কার করার জন্য সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের বরাবার জানিয়েছি।

আরো পড়ুন
error: Content is protected !!